Home » Blog » আন্তর্জাতিক » গাজায় ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে নিহত ৩৭

গাজায় ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে নিহত ৩৭


পবিত্র শহর জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে গাজা সীমান্তে তীব্র বিক্ষোভ চলাকালে ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে কমপক্ষে ৩৭ জন ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৩০০’র বেশি ফিলিস্তিনি নাগরিক।

সোমবার জেরুজালেম মার্কিন দূতাবাসের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হওয়ার কথা। যা ফিলিস্তিনের জনগণকে ক্ষুদ্ধ করেছে। তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কা ও তার স্বামী জারেড কুশনার উপস্থিত থাকবেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। তারা দুজনেই হোয়াইট হাউসের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা।

ফিলিস্তিনের জনগণ স্পষ্টভাবে বুঝতে পারছেন, যুক্তরাষ্ট্র পুরো জেরুজালেম শহর নিয়ন্ত্রণে ইসরায়েলকে সমর্থন দিচ্ছে। অথচ জেরুজালেমের পূর্ব অংশের দাবিদার ফিলিস্তিন। সেখানে পবিত্র আল-আকসা মসজিদের অবস্থান।

ফিলিস্তিনের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনের বিরুদ্ধে গাজা ও পশ্চিম তীরের জনগণ গত ছয় সপ্তাহ ধরে ‘গ্রেট মার্চ অব রিটার্ন’ স্লোগানে বিক্ষোভ করেছে।

ইসরায়েলের দাবি, বিক্ষোভকারীরা সীমান্তের কাঁটাতার ভেঙে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করছিল।

হামাসের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, সোমবার ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে নিহতদের মধ্যে শিশুও রয়েছে।

ফিলিস্তিনের নাগরিকরা গাজা সীমান্ত থেকে ইসরায়েলিদের উদ্দেশ্যে পাথর ও আগুনে গোলা নিক্ষেপ করছে। যখন বিক্ষোভকারীরা গাড়ির টায়ার পুড়িয়ে কালো ধোঁয়ার সৃষ্টি করছে ঠিক তখনই ইসরায়েলি সেনারা স্নাইপারের গুলিতে হত্যা করছে ফিলিস্তিনি নাগরিকদের।

ইসরায়েলি সেনাদের দাবি, ৩৫ হাজার ফিলিস্তিনি নাগরিক সীমান্ত বেড়ার কাছে বিক্ষোভ করছে। তারা নিয়মনীতি মেনেই ফিলিস্তিনিদের ওপর গুলিবর্ষণ করছে।

গত বছর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে নিরপেক্ষ থাকার কয়েক দশক ধরে অনুসৃত নীতি থেকে সরে আসে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ।

জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রে যে কন্স্যুলেট ভবন আছে সেখানেই ছোট পরিসরে অন্তর্বর্তীকালীন এ দূতাবাসটি চালু করা হচ্ছে। পরে পূর্ণাঙ্গ দূতাবাস ভবন নির্মিত হলে তেল আবিব থেকে দূতাবাসের অপরাপর অংশও এখানে নিয়ে আসা হবে।

মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরে এত বিতর্ক কেন?

ইসরায়েল জেরুজালেমকে তাদের চিরন্তন ও অবিভক্ত রাজধানী মনে করে। ফিলিস্তিনিরা পূর্ব জেরুজালেমকে তাদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে দাবি করে আসছে। ১৯৬৭ সালে যুদ্ধের সময় জেরুজালেম দখল করে ইসরায়েল।

১৯৯৩ সালের ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তিচুক্তি অনুযায়ী, জেরুজালেমে ইসরায়েলের সার্বভৌমত্ব আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত নয়।

মন্তব্য করুন

এখানে মন্তব্য করুন