গর্ডন গ্রীনিজ বাংলাদেশেরই নাগরিক

0


গত রবিবার দিবাগত রাতে ঢাকায় পা রেখেছেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তী ও বাংলাদেশ দলের সাবেক কোচ গর্ডন গ্রিনিজ। মূলত তিনি ঢাকায় এসেছেন একটি গলফ সংক্রান্ত অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। পরের দিন সোমবারই সন্ধায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এই সাবেক কোচকে সংবর্ধন দিয়েছে। রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে গ্রিনিজের সম্মানে বিসিবি আয়োজন করে নৈশভোজের। সেখানেই তার হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

গ্রিনিজের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে তার নাম সম্বলিত বাংলাদেশ দলের জার্সিও। তার হাতে জার্সি তুলে দেন বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেট দলের প্রথম অধিনায়ক এবং গ্রিনিজের এক সময়ের শিষ্য নাঈমুর রহমান দুর্জয়। এদিকে, ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশকে দিয়েই কোচিং ক্যারিয়ারের শুরু করেছিলেন গর্ডন গ্রিনিজ।

তাঁর অধীনেই ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফির শিরোপা জিতে বাংলাদেশ দল। এর ফলেই ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপে খেলার পথ সুগম হয়ে যায় টাইগারদের। ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপের মাঝ পথেই এক তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে দায়িত্ব হারাতে হয়েছিলো তাকে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় পাওয়া ম্যাচের আগের দিন চুক্তি শেষ হওয়ার মাত্র এক দিন আগে তাকে কোচের দায়িত্ব হারাতে হয়েছিলো। এবার সেই গ্রিনিজকেই সম্মান জানালো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

অবশ্য বাংলাদেশকেও ভুলেননি এই ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তী। আইসিসি ট্রফি জয়ের পর বাংলাদেশ সরকার তাকে নাগরিকত্ব দিয়েছিলো। ২০০০ সালে বাংলাদেশ দলের টেস্ট অভিষেক দেখতে একজন গর্বিত নাগরিক হিসেবেই সবুজ পাসপোর্ট হাতে পা দিয়েছিলেন ঢাকায়।

তারপর ২০০৪ সালে সেই পাসপোর্ট নবায়ন করতে তিনি বাংলাদেশে এসেছিলেন। টাইগারদের আইসিসি ট্রফি জয়ী অধিনায়ক আকরাম খান জানিয়েছেন সাবেক কোচের আগমনে সবাই উচ্ছ্বসিত। গ্রিনিজকে নিয়েই সেরা একটা সময় কাটাতে চান সাবেক শিষ্যরা।

আকরাম খানের ভাষ্যমতে, ‘শুধু আমি না, ওই টিমে যারা ছিল বা স্কোয়াডে যারা ছিল তারা সবাই অনেক বেশি উচ্ছ্বসিত। গর্ডন গ্রিনিজ সব সময় আমাদের প্রিয় পাত্র হিসেবেই থাকবে। আর চেষ্টা করবো যতটুকু সময় পাব গ্রিনিজকে নিয়েই কাটাবো। আমরা চেষ্টা করছি ১৯৯৭ তে যারা আপনার টিমের সঙ্গেই ছিল, যারা কষ্ট করেছেন তাদের সবাইকেই আমরা রাখছি।’